ENGINEER

•আপনি কি ইঞ্জিনিয়ারিং পেশায় আপনার ক্যারিয়ার গড়তে চাচ্ছেন ?

চীন

ইঞ্জিনিয়ারিং এ এখন চায়নিজরাই বিশ্ব সেরা , ওরা যে আধুনিক যন্ত্রপাতি ব্যাবহার করেছে তা আমাদের এই উপমহাদেশে অনেকেরই নেই। Aeronautical Engineering এর জন্য চীন বিশ্বের সর্বশ্রেষ্ঠ দেশ । তাছাড়া আপনি স্কলারশিপ সহ Mechanical, Hydraulic Engineering (HE), EEE, CSE, Civil Engineering এ পড়তে পারেন চীনের সরকারী বিশ্ববিদ্যালয় গুলোতে। কেন চায়নাতে পড়বেন ঃ • No IELTS requirement • Scholarship for the student with t good GPA • Study gap & Low GPA acceptable • International Educational Environment • No Embassy hassle • Top Rank University বাংলাদেশের প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয় থেকেও পড়ার খরচ কম এবং সারা পৃথিবী থেকে শিক্ষার্থীরা উচ্চশিক্ষার জন্য চীনে আসার কারনে বাংলাদেশী Engineering-এ পড়তে ইচ্ছুক ছাত্র/ছাত্রীদের জন্যও চীন উল্লেখযোগ্য। Admission Time: March , September খরচ : ৬-১২ লাখ টাকা (৪ বছরে Hostel খরচসহ)

ইন্ডিয়া

ইঞ্জিনিয়ারিং পরতে পারেন ইন্ডিয়াতে , এখানে B.Tech (Engineering) উপমহাদেশ খ্যাত । পরিসংখ্যান মতে 36% NASA Scientists এবং 38% Microsoft Engineers ইন্ডিয়ান । বাংলাদেশের যে কোন প্রাইভেট ইউনিভার্সিটির চেয়ে কম খরচে মান সম্পন্ন শিক্ষা পেতে ইন্ডিয়া থাকতে পারে আপনার পছন্দের তালিকায় । Admission Time: August/September (বছরে মা্ত্র ১ বার)তবে January তে English course সহ ভর্তি হবার সুযোগ রয়েছে। খরচ : ৩.৫-৮ লাখ টাকা (৪ বছরে)

মালয়েশিয়া

বর্তমানে মালয়েশিয়া একটি উন্নত দেশ । আপনি যদি Software Engineering, Electrical, Mechanical, Automobile, Computer, Aerospace, Engineering পড়তে চান, তবে Malaysia কে বেছে নিতে পারেন। পড়াশুনার পাশাপাশি কাজের সুযোগ, ভিসার নিশ্চয়তা, Credit Transfer করে UK, Australia, USA তে যাবার সুযোগ থাকাতে মালয়েশিয়া এখন সবচেয়ে আকর্ষণীয় দেশ। Admission Time: March, June, September. খরচ : ১০-১৫ লাখ টাকা (৩ বছরে)

জার্মানী

ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ার জন্যে জার্মানী বিখ্যাত, তবে Masters Level-এ জার্মানীতে Visa পাওয়া যতটা সহজ Bachelor-এ ততটা সহজ নয়। English Medium এ পড়ার জন্য আপনার IELTS লাগবে, অথবা আপনি German Language Course করে German ভাষায় পড়াশুনা করতে পারেন। বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে টিউশন ফি লাগে না বিধায় অনেকেই এখন জার্মানকে পছন্দের তালিকায় প্রথমে রাখছে। তবে ভিসা প্রসেসিং-এ দীর্ঘ সময় এবং ভিসা অনিশ্চয়তার কারনে অনেকে আবার জার্মানীর ব্যাপারে নিরুৎসাহিতও হচ্ছেন।